Business is booming.

রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ১২ বছরের এক গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

0

গ্রেপ্তার তানভির আহসান একটি বেসরকারি কোম্পানিতে চাকরি করেন। আর তার স্ত্রী নাহিদ একজন আইনজীবী বলে পুলিশ জানিয়েছে।

নির্যাতনের শিকার মেয়েটির বাড়ি কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন থানার নবাবপুর গ্রামে। নয় মাস ধরে সে সেগুনবাগিচায় ওই দম্পতির বাসায় কাজ করছিল।

শনিবার রাতে পুলিশ সদর দপ্তরের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রায় প্রতিদিনই ‘নানা অজুহাতে’ গৃহকর্তা ও গৃহকর্ত্রী মেয়েটিকে ‘মারধর’ করত। নির্যাতনে মেয়েটির শরীরে জখমের চিহ্নসহ কিছু ছবি শনিবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে দেন এক প্রতিবেশী।

সেসব ছবিতে মেয়েটির চোখের নিচে আঘাতের চিহ্ন, শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম এবং আগুনে পোড়া ঘা দেখা যায়। একজন সংবাদকর্মী বিষয়টি পুলিশকে জানান। আরও একজন জরুরি সেবার নম্বর ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশকে খবর দেন।

শাহবাগ থানার ওসি মওদুত হাওলাদার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, খবর পাওয়ার পর পরিদর্শক (অপারেশন্স) মো. কামরুজ্জামানের নেতৃত্বে তাদের একটি দল শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তোপখানা রোডের ওই বাসায় গিয়ে ওই দম্পতিকে গ্রেপ্তার করে এবং মেয়েটিকে উদ্ধার করে আনে।

মেয়েটি পুলিশকে কী বলেছে জানতে চাইলে ওসি মওদুত হাওলাদার বলেন, “সে বলেছে, কাজে কোনো ভুল হলেই তারা তাকে মারধর করত।”

মেয়েটিকে পুলিশ হেফাজতে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানান ওসি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.