Business is booming.

রাজধানীতে ট্রেনে কাটা পড়ে পৃথক পৃথক ঘটনায় ৪ জনের মৃত্যু

0

গত ২৪ ঘণ্টায় শহরের বিভিন্ন এলাকায় এ প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। নাখালপাড়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে ইসমাইল হোসেন (৪৫), সায়দাবাদে অজ্ঞাতনামা (৬০), কুড়িল বিশ্বরোডে নিরাপত্তাকর্মী জলিলুর রহমান (৩৮) ও খিলক্ষেতে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ হারান এহসান চৌধুরী (৩৫)।

নিহত ইসমাইলের মামা মো. আবেদ আলী জানান, ইসমাইলের বাড়ি নরসিংদী জেলায়। স্ত্রী শিউলি আক্তার ও একমাত্র ছেলেকে নিয়ে পূর্ব নাখালপাড়ায় থাকতেন। পেশায় তেমন কিছুই করতেন না তিনি। বিকেলে স্ত্রীর কাছে কাজের কথা বলে বাসা থেকে বের হন ইসমাইল। এর কিছুক্ষণ পর তার দুর্ঘটনার খবর শুনতে পান তারা। পরে তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার আগ মুহূর্তে সে রেললাইনে দাঁড়িয়ে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন বলে আশপাশের মানুষের কাছে শুনতে পেরেছেন তারা।

এদিকে সোমবার (৪ অক্টোবর) সকালে সায়দাবাদ করাতিটোলা এলাকার ট্রেনের ধাক্কায় অজ্ঞাতনামা ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তার পরনে ছিল সাদা শার্ট ও চেক লুঙ্গি।

এ বিষয়ে ঢাকা রেলওয়ে থানার (কমলাপুর) উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিয়াজ মাহমুদ জানান, সকালের সায়েদাবাদ করাতিটোলা এলাকায় নারায়ণগঞ্জগামী একটি ট্রেনের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু যায়। নিহতের নাম ঠিকানা জানা যায়নি। তার ফিঙ্গারপ্রিন্ট সংগ্রহ করেছে সিআইডি। মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

কুড়িল বিশ্বরোড রেলক্রসিংয়ে রোববার (৩ অক্টোবর) দিনগত রাতে ট্রেনের ধাক্কায় প্রাণ হারায় নিরাপত্তা কর্মীর জলিলুর রহমান (৩৮)। তার গ্রামের বাড়ি বরগুনা বেতাগী উপজেলায়। বাবার নাম মৃত আব্দুর রশিদ। তিনি রামপুরার বনশ্রীতে একটি ফার্মেসির নিরাপত্তা কর্মী হিসেবে চাকরি করতেন।

ঢাকা রেলওয়ে থানার বিমানবন্দর রেলস্টেশন পুলিশ ফাঁড়ির (এএসআই) সাকলাইন জানান, রোববার দিনগত রাতে কমলাপুরগামী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের ধাক্কায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

অপরদিকে রোববার (৩ অক্টোবর) দিনগত রাতে খিলক্ষেত রেলগেটে ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু হয় শারীরিক প্রতিবন্ধী এহসান চৌধুরীর (৩৫)। স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে উত্তরা ১০ নম্বর সেক্টর এলাকায় থাকতেন তিনি। খিলক্ষেতে একটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

নিহতের খালাতো ভাই মোহাম্মদ আলী জানান, খিলক্ষেত রেলগেট এলাকায় রেললাইনের পাশে বসে প্রাকৃতিক ডাকে সাড়া দেওয়ার সময় ট্রেনের ধাক্কায় সে গুরুতর আহত হয়। পরে খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে গেলে রোববার দিনগত মধ্যরাতে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.